তীর্থযাত্রীদের উপর হামলার পরও একটা সার্জিকাল স্ট্রাইক কি যথেষ্ট ?

পাকিস্তানের ভিতরে ঢুকে মাত্র একটা সার্জিকাল স্ট্রাইক কি যথেষ্ট ? কোনো সন্দেহ নেই যে আমরা অন্ততঃ একটা সার্জিকাল স্ট্রাইক (সরকারি  ভাবে) করেছি এবং তা পৃথিবীকে জানানোর সাহস দেখিয়েছি , কিন্তু পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর নেতৃত্ব, কুকুরের লেজের মত, যতই সোজা করার চেষ্টা কর, সে বাঁকা হবেই হবে তাই আমাদের প্রশ্ন  মাত্র একটা সার্জিকাল স্ট্রাইক কি যথেষ্ট ?

আমরা এবং সমগ্র বিশ্ব জানে যে পাকিস্তানের ট্রেনিং ক্যাম্প থেকে জঙ্গিরা পাকিস্তানের প্রত্যক্ষ মদতে ভারতে ঢুকে জঙ্গি কার্যকলাপ চালাচ্ছে তবুও সমগ্র  বিশ্ব ভারতকে মৌখিক সহানুভূতি ছাড়া কিছুই দেয় নি | তাই আমাদের চিন্তা আমাদেরকেই করতে হবে, কেউ আমাদের হয়ে পাকিস্তানের সাথে লড়তে যাবে না, নিজের আত্মরক্ষার অধিকার সকলের আছে, আমরা আর কত নিরীহ মানুষের বলি দেব, আর কতদিন নপুংসকের মত  মুখেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কথা বলে যাব, আমরা কবে বলতে পারব “রক্তের বদলে রক্ত নয়, পুরো মুন্ডুটাই চাই”

না, আমি যুদ্ধ উন্মাদ নই, আমরা যুদ্ধ চাই না, যে কোনো দেশের পক্ষেই “শান্তি” বিশ্বের সবচেয়ে আকাক্ষিত জিনিষ, আমাদের নাগরিকদের পক্ষেও এবং ভারতবর্ষের ইতিহাসেও আজ পর্যন্ত আমরা আক্রমনকারী হিসাবে চিন্হিত হই নি, তাই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পুরোদস্তুর যুদ্ধ আমরাও চাই না, তা ছাড়া পাকিস্তানের পাগল সেনাবাহিনীর হাতে পরমানু অস্ত্র আছে, যাদের বিচার বুদ্ধি একটা বাচ্চা ছেলের থেকেও কম, যারা নিজেদের সর্বনাশ জেনেও পরমানু বোমা নিয়ে ভারতের উপর হামলা করতে পারে, তাই সরাসরি যুদ্ধ চাই না, পাকিস্তান ত এখন বারবনিতার মত হয়ে গেছে, আমেরিকা পাকিস্তানের ভিতরে ঢুকে হামলা করছে, ইরান মিসাইল হামলা করছে, আফগানিস্থানও ছেড়ে কথা বলছে না, আর পাকিস্তানের নেতৃত্ব রাস্তার কুকুরের মত শুধু ঘেউ ঘেউ করে চুপ করে যাচ্ছে, এদের বিরুদ্ধে কিচ্ছু করার ক্ষমতা পাকিস্তানের নেই ,তাহলে কেন আমরা চুপ করে বসে বসে আমাদের নাগরিকদের হত্যালীলা দেখব ?

পাকিস্তান যদি ভারত ভাঙ্গার স্বপ্ন দেখে তাহলে আমাদের পাকিস্তানকে টুকরো করার চেষ্টা কেন করব না, কেন আমরা পুরোপুরি সামরিক, কুটনৈতিক ও রাজনৈতিকভাবে বালুচিস্তানকে সমর্থন করবো না,  শুধুমাত্র লালকেল্লা থেকে বালুচিস্তান সম্বন্ধে কিছু কথা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বললে যে  পাকিস্তানের মোটা বুদ্ধির সেনাবাহিনীর মাথায় কিছুই ঢুকবে না তা হয়ত আমাদের প্রধানমন্ত্রী বুঝতে পারেন নি, পাকিস্তানের ঘাড়ে রদ্দা মেরে না বললে তাদের মাথাতে কিছুই ঢোকে না, বিষাক্ত সাপ যদি কামড়াতে আসে তবে তার মাথাটা থেঁতলে দিতে হয়, তারপর আগুনে পুড়িয়ে তার মৃত্যু নিশ্চিত করতে হয়, বাংলাদেশকে স্বাধীন করে পাকিস্তানকে ল্যাংড়া বানিয়ে দিয়েছি, বালুচিস্তানকে সমর্থন করে কেন পাকিস্তানকে পুরোপুরি  পঙ্গু করে দেব না, শুধু বালুচিস্তান নয়, পাকিস্তানের প্রত্যেক অংশে আগুন জ্বলুক, প্রত্যেকটি প্রদেশ পাকিস্তান থেকে আলাদা হয়ে যাক, ভারত সরকারি ভেবে বা বেসরকারীভাবে, যেভাবেই হোক না কেন, প্রত্যেকটি স্বাধীনতাকামী পাকিস্তানী জনগোষ্ঠী সম্পুর্নভাবে সমর্থন করুক যেমন আমরা বাংলাদেশের সময় করে ছিলাম, কেন এখনো পর্যন্ত আমরা চুপ করে আছি ? কেন কোনো সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নেই পাকিস্তানকে টুকরো করার , এই  প্রশ্নের জবাব চাই, মুখে নয় কাজে প্রমান চাই |

ইতি অবিবেচক বাতুল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *